রবিবার ৫ ডিসেম্বর ২০২১
  • প্রচ্ছদ » other important » হাসপাতালে ভর্তি বেগম জিয়া; অসুস্থতা নাকি সাজানো নাটক!



হাসপাতালে ভর্তি বেগম জিয়া; অসুস্থতা নাকি সাজানো নাটক!


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
16.11.2021

নিউজ ডেস্ক: বেগম খালেদা জিয়া শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে রোববার রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালের সিসিইউতে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসকরা বলছেন, শরীরে হিমোগ্লোবিনের মাত্রা কমে যাওয়ায় তাকে সিসিইউতে স্থানান্তর করা হয়েছে। তার অসুস্থতার ধরণ-প্রকৃতি নিয়ে বিএনপির অভ্যন্তরে সৃষ্টি হয়েছে এক ধরনের ধূম্রজাল। বিএনপি নেতা ও তার ব্যক্তিগত চিকিৎসকদের পক্ষ থেকে সুস্পষ্ট কোন তথ্য পাওয়া যাচ্ছে না।

বেগম জিয়ার অসুস্থতা নিয়ে বিএনপির কোনো নেতাই কোনো সদুত্তর দিতে পারেননি। দলীয় নেত্রীর অসুস্থতা নিয়ে বিএনপি নেতারা পরস্পরবিরোধী বক্তব্য রাখছেন। মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলছেন, বেগম খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা ভালো না। তার উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে নেয়া দরকার। আবার অন্যরা বলছেন, বেগম খালেদা জিয়ার অবস্থা স্থিতিশীল। দেশে ভালো মানের হাসপাতাল থাকতে তাকে বিদেশ নেয়ার কোন প্রয়োজন দেখছি না। চিকিৎসকদের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, গতবার হাসপাতালে ভর্তির সময় বেগম জিয়ার ছোট একটা অপারেশন করা হয়েছিল এবং তার একটি বায়োপসি রিপোর্টও করা হয়েছিল। বায়োপসি রিপোর্টটি সন্তোষজনক। এটার মধ্যে আতঙ্কের তেমন কিছু নেই।

এদিকে বেগম খালেদা জিয়ার অসুস্থতা নিয়ে সংকটে দ্বৈত সংকটে পড়েছেন বিএনপি নেতৃবৃন্দ। একদিকে যেমন তারা চাইছেন বেগম খালেদা জিয়াকে বিদেশে পাঠাতে। আর বিদেশে পাঠানোর জন্য বেগম খালেদা জিয়াকে এমন অসুস্থ দেখাতে হবে, যার চিকিৎসা বাংলাদেশের সম্ভব নয়। আবার বেগম জিয়া বেশি অসুস্থ এটি যদি প্রচারিত হয় তাহলে বিএনপি নেতাকর্মীদের মনোবল নষ্ট হয়ে যাবে এবং বিএনপির মধ্যে ভাঙন প্রক্রিয়া ত্বরান্বিত হতে পারে। এমন আশঙ্কায় দিন পার করছে বিএনপির সিনিয়ররা। এসব কিছু নিয়ে বিএনপির মধ্যে ভিন্ন মতের সৃষ্টি হয়েছে। একপক্ষ মনে করছে, বেগম খালেদা জিয়ার অসুখের বিষয়টিকে ফুলিয়ে-ফাঁপিয়ে বলতে হবে যাতে তার প্রতি মানুষের সহানুভূতি তৈরি হয় এবং তাকে বিদেশে পাঠানোর জন্য সরকারের উপর এক ধরনের চাপ সৃষ্টি হয়।

রাজনৈতিক বিজ্ঞজনরা বলছেন, মানুষ তো অসুস্থ হতেই পারে। এনিয়ে রাজনীতি করা নিতান্তই নোংরা মানসিকতার পরিচয় বহন করে। বিএনপি এমন একটি দল, যার জন্মই হয়েছে অবৈধ উপায়ে। তারা তাদের রাজনৈতিক এজেন্ডা বাস্তবায়নে গুম-খুন-অত্যাচারসহ নানাবিধ নাটকীতা করতেও পিছুপা হয় না। দলীয় নেত্রীর সুস্থ থাকা বা অসুস্থ হওয়া তাদের কাছে মুখ্য বিষয় নয়। তারা এই ইস্যুকে ফুলে-ফাঁপিয়ে বড় করে নিজেদের স্বার্থ হাসিলে মরিয়া হয়ে উঠেছে। যে রাজনৈতিক দলের জন্মই হয়েছিল বন্দুকের নলের মধ্য দিয়ে, সেই দলের আদর্শ কেমন হবে তা আপনারাই বিচার করেন।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি