সোমবার ২৯ নভেম্বর ২০২১
  • প্রচ্ছদ » Lead 2 » তারেকের নির্দেশেই পাকিস্তানের পতাকা নিয়ে মাঠে ছাত্রদলকর্মীরা!



তারেকের নির্দেশেই পাকিস্তানের পতাকা নিয়ে মাঠে ছাত্রদলকর্মীরা!


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
22.11.2021

করোনার কারণে অনেক দিন পর দেশে ফিরেছে ক্রিকেট। পাকিস্তানের বিপক্ষে টি–টোয়েন্টি সিরিজে খেলছে বাংলাদেশ। কথা ছিল খেলায় জিতে আনন্দ করবেন বাংলাদেশের সমর্থকরা। কিন্তু বাংলাদেশ-পাকিস্তান ম্যাচে ঘটেছে অবিশ্বাস্য ঘটনা। মিরপুরে বাংলাদেশেরই কিছু দর্শক উড়িয়েছেন পাকিস্তানের পতাকা। খেলায় নিজ দেশের পতাকা না উড়িয়ে বিপক্ষ দেশের পতাকা উড়ানোর ঘটনা আগে কখনই ঘটেনি। কিন্তু এবার কেন এই ঘটনা? তাও আবার উড়ানো হয়েছে পাকিস্তানের পতাকা, যে দেশটি মহান মুক্তিযুদ্ধে ৩০ লাখ বাঙ্গালিকে হত্যা এবং ২ লাখ মা-বোনের ইজ্জত কেড়ে নিয়েছে। কিন্তু কারা ঘটাল এই ঘৃণ্য ঘটনা?

জানা গেছে, ম্যাচে পাকিস্তানের পক্ষে যারা উল্লাস করেছে তারা সব বিএনপি-জামায়াতের সমর্থক। পাকিস্তানের সাথে বিএনপির সুসম্পর্কের কথা সবাই জানে। আর জামায়াত তো একাত্তরে সরাসরি পাকিস্তানের হাতে হাত মিলিয়ে মানবতাবিরোধী কর্মকাণ্ড চালিয়েছে তাই এই দুই দলের নেতাকর্মীরা পুরাতন প্রেম পাকিস্তানকে ভুলতে পারেনি।

লন্ডন বিএনপির সূত্র জানিয়েছে, ক্ষমতায় আসার জন্য মরিয়া তারেক রহমান দেশ বিক্রি করতেও দ্বিধা করেন না। তার দরকার টাকা এবং ক্ষমতা, দেশ কই গেল সেটা দেখার দরকার হয় না তার। এই দেশদ্রোহী তার বাবা স্বৈরাচার জিয়ার মতই ক্ষমতাপাগল। তাই পাকিস্তান দূতাবাসকে খুশি করতেই ছাত্রদলের নেতাদের মাঠে গিয়ে দেশটির পতাকা ওড়ানোর নির্দেশ দেন কুলাঙ্গার তারেক। তার নির্দেশমতো ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা পাকিস্তানের পতাকা নিয়ে মাঠে যায়। তারপর নির্লজ্জের মত পতাকা ওড়ায়।

এই ঘটনার পর দেশজুড়ে প্রতিবাদের ঝড় উঠেছে। মহান মুক্তিযুদ্ধকে অপমান করে যারা পাকিস্তানের পতাকা উড়িয়েছে তাদের শাস্তির দাবিতে সোচ্চার হয়েছেন দেশপ্রেমিক মানুষ। বাংলাদেশ-পাকিস্তান ম্যাচে মিরপুরে পাকিস্তানের পতাকা ওড়ানোর প্রতিবাদস্বরূপ এক যৌথ বিবৃতি দিয়েছেন ৪০ জন বিশিষ্ট নাগরিক।

সংবাদমাধ্যমে পাঠানো বিবৃতিতে তারা বলেছেন, পাকিস্তান উদ্দেশ্যমূলকভাবে ও পরিকল্পিতভাবে বাংলাদেশর স্বাধীনতা ও সার্বভৌমকে অপমান করেছে। এই ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে অনতিবিলম্বে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড তো বটেই; তাদের দেশের সরকারের তরফ থেকেও ক্ষমা ও ভুল স্বীকার করতে হবে।

তারা বলেন, ‘৭১-এ সরাসরি যুদ্ধে পরাজিত শক্তি পাকিস্তান যে আজও আমাদের স্বাধীন বাংলাদেশকে মেনে নিতে পারেনি বা স্বীকার করেনি- তা তারা নানাভাবে বোঝানোর চেষ্টা করে এবং অতীতেও করেছে। এমন নজির আমরা পূর্বেও লক্ষ্য করেছি। ৮০’র দশকেও দেখেছি এই বাংলায় ইমরান খানের ধৃষ্টতা!’

এরই প্রতিবাদ স্বরূপ আগামী সোমবার সকাল ১১টায় জাতীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে একটি প্রতিবাদ সভার আয়োজন করেছেন তারা।

বিএনপির নেতাকর্মীদের এহেন অপকর্মে কষ্ট পেয়ে জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা শুক্রবার ফেসবুকে স্ট্যাটাসে লিখেছেন, ‘খেলার সঙ্গে কোনো কিছু মেলানো যায় না এটা ঠিক, কিন্তু খেলাটা যখন আমাদের দেশে, আর খেলছে আমাদের দেশ, সেখানে অন্য যে দেশই খেলুক না কেন, তাদের পতাকা তাদের দেশের মানুষ ছাড়া আমাদের দেশের মানুষ ওড়াবে, এটা দেখে সত্যি কষ্ট লাগে।’



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি