সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২
  • প্রচ্ছদ » Lead 1 » অপপ্রচারে ব্যর্থ হয়ে খালেদা ইস্যুতে এবার ভিন্ন পথে হাঁটছে তারেকের গুজব সেল



অপপ্রচারে ব্যর্থ হয়ে খালেদা ইস্যুতে এবার ভিন্ন পথে হাঁটছে তারেকের গুজব সেল


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
26.11.2021

নিউজ ডেস্ক : দেশে উন্নত চিকিৎসা পাচ্ছেন বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া। সাজাপ্রাপ্ত আসামী হওয়া সত্বেও মানবিক বিবেচনায় তিনি বাসায় ও হাসপাতালে চিকিৎসা করাতে পারছেন। শুধু তাই নয়, বিদেশি ডাক্তার আনার অনুমতিও দিয়েছে সরকার। কিন্তু এই সুযোগ নিয়েও কৃতজ্ঞতা নেই বিএনপির। একের পর অপরাজনীতি করেই চলেছে।

চলছে একের পর এক গুজব ও অপপ্রচার। যার মূল উদ্দেশ্য সরকারকে বিব্রত করা। আর দেশে অস্থিতিশীল পরিবেশ তৈরি করে পেছনের দরজা দিয়ে ক্ষমতার চেয়ারে বসা। কিন্তু এই পথে কাজ না হওয়ায় অন্য কৌশলে মাঠে নেমেছে তারেকের গুজববাহিনী।

সম্প্রতি দেশে বেশ কিছু গুজব ছড়িয়েছে তারেক রহমানের পেইড গুজব সেলের কথিত সাংবাদিকরা। যেমন- বেগম জিয়া মারা গেছেন,সরকার তাকে বিদেশ না পাঠিয়ে দেশেই মেরে ফেলছেন, সরকারের কারণেই খালেদার এই পরিণতি।

কিন্তু এসব গুজবে কোনো কাজ হয়নি। কেননা সরকার বেশ সতর্ক অবস্থানে রয়েছে। দেশের জনগণও এখন ‍গুজবের ব্যাপারে বেশ সোচ্চার। ফলে তারেকের পরিকল্পনা পুরোটাই ভেস্তে গেছে। দিশেহারা হয়ে পড়ায় ভুগছেন সিদ্ধান্তহীনতায়।

সাংবাদিক খ্যাত ইলিয়াস, কনক সারওয়াররা গুজব চালিয়ে ব্যর্থ হওয়ায় নিজেদের লুকিয়ে নিয়েছে। এই সময় ভিন্ন পথে হাঁটছে লন্ডনে অবস্থানকারী আরেক সাংবাদিক রেজা আহমেদ ফয়সাল চৌধুরী শোয়েব। যিনি চ্যানেল আই ইউরোপের ম্যানেজিং ডিরেক্টর ছিলেন। এখন কাজ করছেন তারেকের পেইড এজেন্ট হয়ে।

সম্প্রতি তিনি ফেসবুক ও ইউটিউবে ভিডিও প্রকাশ করেছেন খালেদা জিয়ার অসুস্থতা ও তার চিকিৎসার ব্যাপারে সরকারের ভূমিকা নিয়ে। সেখানে তিনি কোনো গুজবের আশ্রয় নেননি। সরাসরি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে করুণা চেয়েছেন।

তার ভিডিও পর্যবেক্ষণে দেখা যায়, তিনি আইন-কানুন তেমন বোঝেন না। খুবই নগন্য ও ন্যাকা ন্যাকা যুক্তি খাড়া করেন। আর শেষ মেষ শেখ হাসিনার কাছে ইনিয়ে বিনিয়ে খালেদাকে বিদেশে পাঠানোর আকুতি জানিয়েছেন।

শুধু তাই নয়, দেশ থেকে তার কাছে ফোন করে সাহায্যের জন্য নাকি আবেদনও করা হয়েছে বলে তিনি উল্লেখ করেছেন। কিন্তু তিনি নিজেই আজ ১৫ বছরের বেশি সময় ধরে ভবঘুরে হয়ে দিন কাটাচ্ছেন। ফয়সাল চৌধুরীর আরেকটা বৈশিষ্ট্য- কেউ তাকে মূল্যায়ন না করলেও তিনি নিজেকে বিশেষজ্ঞ ভাবতে বেশ পছন্দ করেন।

এসব ভণ্ডামি দেখে বিশেজ্ঞরা বলছেন, একজন সাজাপ্রাপ্ত আসামীকে বর্তমান সরকার যথেষ্ট সুবিধা দিচ্ছে। এরপরও যারা ভিন্ন পথে হাঁটছে তাদেরকে কোনো রকম সুযোগ দেয়া যাবে না। এতে করে দেশের পরিস্থিতি খারাপ হবে।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি