সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২
  • প্রচ্ছদ » Lead 3 » অতিরিক্ত নেশার ঘোরেই আবোল তাবোল বকছেন কোকোর স্ত্রী শর্মিলা!



অতিরিক্ত নেশার ঘোরেই আবোল তাবোল বকছেন কোকোর স্ত্রী শর্মিলা!


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
02.12.2021

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার চিকিৎসা নিয়ে বিএনপির নেতাদের মত এবার উল্টাপাল্টা তথ্য দিতে শুরু করেছেন তার ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর স্ত্রী শর্মিলা রহমান সিঁথি। একবার দাবি করছেন খালেদা জিয়া কথা বলতে পারছেন না, আবার পরক্ষণেই জানাচ্ছেন তার শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল রয়েছে। অতিরিক্ত নেশার ঘোরে সিঁথি এরকম আবোল তাবোল বকছেন বলে জানিয়েছে খালেদা জিয়ার বাসভবন ফিরোজার একটি সূত্র।

জানা গেছে, মঙ্গলবার রাজধানীর বসুন্ধরার এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন খালেদা জিয়াকে দেখতে যান বিএনপি চেয়ারপারসনের ছোট ছেলে প্রয়াত আরাফাত রহমান কোকোর স্ত্রী শর্মিলা রহমান সিঁথি। তিনি এদিন দুপুর ২ টা থেকে বিকেল ৫ টা পর্যন্ত হাসপাতালে অবস্থান করেন। হাসপাতাল থেকে বেরিয়ে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘আম্মা কথা বলতে পারছেন না। তবে শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল রয়েছে।’

তার এ বক্তব্যের পর রাজনৈতিক অঙ্গনে হাস্যরসের সৃষ্টি হয়েছে। শর্মিলার বক্তব্য খালেদা জিয়ার চিকিৎসা নিয়ে বিএনপির নেতাদের বক্তব্যেরই প্রতিধ্বনি বলে জানান রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা। তাদের মতে, শর্মিলা মির্জা ফখরুলদের মত টানা মিথ্যাচারে অভ্যস্ত না হওয়ায় মুখ ফসকে খালেদার স্থিতিশীলতার কথাও বলে ফেলেছেন।

খালেদার বাসভবন ফিরোজার এক কর্মচারী জানান, গত ২৫ অক্টোবর খালেদা জিয়ার পাশে থাকতে যুক্তরাজ্য থেকে ঢাকায় আসেন সিঁথি। তবে ওনার সব কাজকর্ম স্বাভাবিক, বেশি চিন্তিত মনে হচ্ছে না। রাতে ওনার সাথে নানাজন দেখা করতে আসছেন, নিচ থেকে আমরা হই-হুল্লোড় শুনি। উনি অনেক বেলা করে ঘুম থেকে ওঠেন।

সূত্র জানায়, আগত অতিথিদের সাথে সারা রাত জেগে মদ্যপান করেন শর্মিলা। ফলে সকালে ঘুম থেকে উঠতে পারেন না। দুপুরে ঘুম থেকে ওঠেন। শর্মিলার সাথে রাতে আড্ডা দিয়ে আসা এক ব্যবসায়ী নাম প্রকাশ করার শর্তে বলেন, সারারাত ড্রিংক করলে পরের দিন তার একটু রেশ থাকে। আমার মনে হয় সেই কারণেই শর্মিলা একটু এলোমেলো বলেছেন।

লন্ডন বিএনপি সূত্রে জানা গেছে, স্বামী আরাফাত রহমান কোকোর সাথে নিয়মিত নেশা করতেন সিঁথি। অতিরিক্ত মাদক নিয়ে অকালে মৃত্যু হয় কোকোর। এরপর নিঃসঙ্গতা এবং একাকীত্ব কাটাতে বন্ধু-বান্ধবদের সাথে আড্ডা দেওয়া শুরু করেন সিঁথি। নিয়মিত নাইট ক্লাবেও যান তিনি। এখন এক রাতও নেশা না করে থাকতে পারেন না সিঁথি। দেশে খালেদা জিয়াকে দেখতে এসেও সেই অভ্যাস ছাড়তে পারেননি তিনি। অতিরিক্ত নেশার ফলে সবসময় নিজেকে কন্ট্রোল করতে পারেন না। এরফলেই খালেদার চিকিৎসা নিয়ে আবোল তাবোল বকছেন তিনি।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি