সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২
  • প্রচ্ছদ » Lead 1 » সমাবেশের আগেই নিজেদের মধ্যে ছাত্রদলের হাতাহাতি-মারামারি!



সমাবেশের আগেই নিজেদের মধ্যে ছাত্রদলের হাতাহাতি-মারামারি!


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
04.12.2021

নিউজ ডেস্ক: যতই দিন যাচ্ছে, ততই যেন প্রকাশ্য হচ্ছে বিএনপির অন্তকোন্দল। বেরিয়ে আসছে একের পর এক থলের বিড়াল। ৪ ডিসেম্বর (শনিবার) রাজধানীতে দেখা গেলো তেমনই এক চিত্র। নিজেদের মধ্যে দ্বন্দ্ব ও গ্রুপিংয়ের জেরে সমাবেশের আগেই হাতাহাতি-মারামারিতে লিপ্ত হলেন বিএনপির ছাত্রসংগঠন ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা। বিশিষ্টজনদের ভাষ্য, এটাই বিএনপির আসল চিত্র। এটাই তারা।

নির্ভরযোগ্য সূত্রের তথ্যমতে, বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও বিদেশে চিকিৎসার দাবিতে রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে সমাবেশের আয়োজন করে ছাত্রদল। ৪ ডিসেম্বর (শনিবার) সকাল ১০টায় এ সমাবেশ শুরুর কথা থাকলেও দলীয় পূর্ব পরিকল্পনার অংশ হিসেবে সকাল ৮টা থেকেই রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকে ব্যানার-ফেস্টুন নিয়ে সর্বস্তরের নেতাকর্মীরা সমাবেশস্থলে উপস্থিত হতে থাকেন। একপর্যায়ে সেখানে তারা নিজেদের মধ্যে প্রথমে বাকবিতণ্ডা ও পরে হাতাহাতি-মারামারিতে লিপ্ত হন। এতে যান চলাচলে বিঘ্ন ঘটে। সৃষ্টি হয় যানজটের।

সমাবেশস্থল থেকে বাংলানিউজ ব্যাংকের প্রতিবেদক জানান, বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে প্রেসক্লাব এলাকা লোকে লোকারণ্য হতে শুরু করে। এ সময় নেতাকর্মীরা খালেদা জিয়ার মুক্তি ও বিদেশে চিকিৎসার দাবিতে বিভিন্ন স্লোগান দেন। দেন সরকারকে কটাক্ষ করে বিভিন্ন স্লোগানও। একপর্যায়ে সকাল ৯টার পর থেকেই মূলত প্রেসক্লাবের সামনে বিশৃঙ্খল পরিবেশের সৃষ্টি হয়। ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা নিজেরাই নিজেদের মধ্যে বচসায় লিপ্ত হয়। পরে যা গিয়ে ঠেকে হাতাহাতি-মারামারিতে। এক পর্যায়ে বিএনপি নেতাকর্মীদের হস্তক্ষেপে তাদের হাতাহাতি থামলেও সেখানে এখনও উত্তেজনা বিরাজ করছে। চলছে বিক্ষোভ সমাবেশ। তবে মৎস্য ভবন মোড়, হাইকোর্ট মোড়, সচিবালয় এলাকা, পুরানা পল্টন ও প্রেস ক্লাব এলাকায় সতর্ক অবস্থানে রয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

ইতোমধ্যে বেশ কয়েকজন নেতাকর্মী সমাবেশে বক্তব্য রাখলেও দলীয় নেতাকর্মীরা অপেক্ষায় রয়েছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের। তিনি কিছুক্ষণের মধ্যেই বক্তব্য রাখবেন বলে জানা গেছে।

দেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলছেন, বিজয়ের মাসে সহিংস পরিকল্পনা নিয়ে মাঠে নেমেছে বিএনপি। সেজন্য তারা খালেদার অসুস্থতাকে পুঁজি করে দেশব্যাপী বিশৃঙ্খলা তৈরির মাধ্যমে নিজেদের ফায়দা লোটার চেষ্টা করছে। চাইছে পেছনের দরজা দিয়ে ক্ষমতায় যেতে। এমতাবস্থায় তাদের সকল ষড়যন্ত্র নসাৎ করে দিতে সরকারের পাশাপাশি একজন সচেতন নাগরিক হিসেবে আমাদের সবাইকে সদা-সজাগ থাকতে হবে। যাতে তারা কোন অবস্থাতেই তারা তাদের নোংরা উদ্দেশ্য হাসিল করতে না পারে।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি