শুক্রবার ২১ জানুয়ারী ২০২২
  • প্রচ্ছদ » Lead 2 » বিএনপির রাজনীতিতে এখন বড় অস্ত্র খালেদা 



বিএনপির রাজনীতিতে এখন বড় অস্ত্র খালেদা 


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
07.12.2021

নিউজ ডেস্ক : খালেদা জিয়াকে চিকিৎসার নামে বিদেশে পাঠানোর জন্য আইনের পথে না হেঁটে তাকে নিয়ে রাজনীতি করছে দলটির নেতারা। তাদের মূল লক্ষ্য খালেদার অসুস্থতার ইমেজটি সামনে রেখে জনগণকে বিভ্রান্ত করা। ষড়যন্ত্র করে পেছনের দরজা দিয়ে রাষ্ট্র ক্ষমতা দখল করা। সেই যাত্রার তুরুপের তাস খালেদা জিয়া।
বিএনপির একটি নির্ভরযোগ্য সূত্র বাংলানিউজ ব্যাংককে জানায়, খালেদা জিয়ার অসুস্থতা এবং বিদেশে পাঠানোর ইস্যুকে পুঁজি করে দেশকে অশান্ত করার সিদ্ধান্ত হয় দলের শীর্ষ নেতাদের বৈঠকে। সেই বৈঠকে খালেদা জিয়াকে তুরুপের তাস হিসেবে ব্যবহার করতে বলেছেন স্বয়ং তার পুত্র তারেক রহমান।
এরপর থেকেই বিএনপির সিনিয়র নেতারাসহ বিভিন্ন পেশাজীবী সংগঠনের নেতাকর্মীরা রাজধানীর বিভিন্নস্থানে আন্দোলন-সমাবেশের নামে জনগণকে দুর্ভোগে ফেলছেন। জনগণের সহানুভূতি পাবার চেষ্টা করছেন। জনগণ এতে সহানুভূতি তো দূরের কথা, বিরক্ত হয়ে তাদের গালমন্দ করছে।
মঙ্গলবার (৭ ডিসেম্বর) বিকেলে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে রাস্তা আটকে বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে সমাবেশ করে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম। তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয় ওই এলাকায়। তখন বিরক্ত হয়ে সাধারণ জনগণ বিভিন্ন প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন।
নাসিমা রায়হান নামে এক কর্মজীবী নারী বলেন, বিএনপি খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসার জন্য মানবিক তথা বিশেষ বিবেচনায় রাষ্ট্রপতি বা প্রধানমন্ত্রীর নির্বাহী ক্ষমতাবলে সাজা মওকুফ পেতে হলে বিএনপিকেই এগিয়ে আসতে হবে। নেত্রীর সুচিকিৎসার কথা বিবেচনায় এনে ‘কিছু পেতে’ হলে বিএনপিরও ‘কিছু ছাড়’ দেওয়া উচিত। এভাবে জনগণকে ভোগান্তিতে ফেলা উচিত নয়।
বাংলা নিউজ ব্যাংককে দীর্ঘ জ্যামে আটকে থাকা একজন ব্যাংক কর্মকর্তা বলেন, খালেদা জিয়া একজন সাজাপ্রাপ্ত আসামি। সেই হিসেবে তিনি রাষ্ট্রপতির কাছে ক্ষমা চাইতে পারেন। রাষ্ট্রপতি তাকে ক্ষমা করে দিলেই তো তিনি বিদেশে যেতে পারেন। বিএনপি নিজেই এ নিয়ে রাজনীতি ও স্ট্যান্টবাজি করছে। খালেদা জিয়ার সুস্থতার চেয়ে তাদের কাছে রাজনীতি বড়। তাদের রাজনীতির জন্য আমরা সাধারণ মানুষ কেন দুভোর্গের শিকার হবো।
এদিকে বিএনপির রাজনীতির বিষয়ে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা বলেন, বর্তমান বিএনপির রাজনীতি দেখে মনে হচ্ছে, খালেদা জিয়ার চিকিৎসার ক্ষেত্রে সবচেয়ে বড় বাধা তার দলের নেতারা। বিএনপি খালেদা জিয়ার মুক্তি চায়, তিনি সাবেক প্রধানমন্ত্রী ছিলেন এটা সত্য। পাশাপাশি এটাও সত্য তিনি আদালত কর্তৃক একজন দণ্ডপ্রাপ্ত কয়েদি। অতএব একটি দণ্ডপ্রাপ্ত কয়েদি কারাগারে থাকা অবস্থায় যতো সুযোগ সুবিধা কারাবিধি অনুযায়ী সেটা তিনি পাবেন। বেগম খালেদা জিয়া এ ক্ষেত্রে অত্যন্ত সৌভাগ্যবান, উনি বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মানবতায় কারাবিধির বাইরে সুযোগ-সুবিধা ভোগ করেছেন। আউট অফ দ্য ল। প্রধানমন্ত্রী তার সর্বোচ্চ ক্ষমতা ব্যবহার করেই বেগম খালেদা জিয়াকে বাইরে রেখেছেন। তার পছন্দের ডাক্তার দ্বারা পছন্দের হাসপাতালে চিকিৎসার সুযোগ দিয়েছেন।
এদিকে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি ও বিদেশে চিকিৎসার অনুমতি দেওয়ার আবেদনটি গুরুত্বসহকারে সরকার পর্যালোচনা করছে। আলাপ-আলোচনা করে যতটুকু সম্ভব সিদ্ধান্ত নেওয়া যায়, তা নেওয়া হবে। এরপরও বিএনপির রাজনৈতিক আচরণ- উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। আসলে তাদের মূল লক্ষ্য রাষ্ট্র ক্ষমতা দখল করা।


এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি