সোমবার ২৪ জানুয়ারী ২০২২
  • প্রচ্ছদ » Lead 2 » ফখরুলের ‘ধমকের উপর চলছে’ বিএনপির সভা-সমাবেশ



ফখরুলের ‘ধমকের উপর চলছে’ বিএনপির সভা-সমাবেশ


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
09.12.2021

নিউজ ডেস্ক : খালেদা জিয়ার মুক্তি এবং তাকে বিদেশে পাঠানেরা দাবিতে নিয়মিত সভা-সমাবেশ করছে বিএনপি। এসব সভা-সমাবেশ শুরু হচ্ছে দলের নেতাকর্মীদের ধমক দিয়ে, শেষও হচ্ছে ধমক দিতে দিতে। এমনকি নোট নেবার জন্য সাংবাদিকরাও উপজ্জ্বীব্য পাচ্ছে না। কিছুক্ষণ পর পর শুধু শোনা যায়- ‘চুপ করো, ‘চুপ করো’, ‘হু ইস দিস বয়, ‘এই বেয়াদব এখানে আসো’।

গত একমাসে সরেজমিনে উপস্থিত থেকে বিএনপির প্রতিটি রাজনৈতিক সভা-সামবেশ এমনকি সংবাদ সম্মেলনেও এমন চিত্র দেখা গেছে। নেতাকর্মীদের এই হট্টগোলই প্রমাণ করে সিনিয়র নেতাদের আর মানছে না দলটির জুনিয়র বা তৃণমূলের নেতারা।

সোমবার (৬ ডিসেম্বর) রাজধানীর রমনায় ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে খালেদা জিয়ার বিদেশে চিকিৎসা ও মুক্তির দাবিতে আলোচনা সভায় চরম বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি হয়। সেখানে দলটির মহাসচিবের সাথে তর্কে জড়ান ঢাকা মহানগর দক্ষিণের আহ্বায়ক গোলাম মাওলা শাহিন। মির্জা ফখরুল বারবার চুপ করতে বলার পরও তিনি থামেননি। উল্টো মহাসচিবের সাথে চিৎকার করে কথা বলেন তিনি। তখন ফখরুল বলেন, হু ইস দিস বয়? এই বেয়াদব চুপ করো, তারপরও থামছিল না শাহিন। এক পর্যায়ে শাহিনকে সভা থেকে বের হয়ে যেতে বলেন মির্জা ফখরুল। তখন মির্জা ফখুরুলকে ভুয়া ভুয়া বলে চিৎকার করতে থাকেন শাহিনসহ তার সঙ্গীরা।

এর আগে গত ৬ নভেম্বর ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে দলীয় নেতাকর্মীদের হট্টগোল নিয়ে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। এক পর্যায়ে নেতাকর্মীদের উদ্দেশ করে বলেন, ‘কথা শুনতে না চাইলে কক্ষের বাইরে চলে যান অথবা আপনারা মাইকে এসে কথা বলেন, আমরা মঞ্চে বসে শুনি।’

বরাবরের মতো ১৯ নভেম্বর গুলশান কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে নেতাকর্মীদের ধমক না দিয়ে থাকতে পারেননি মির্জা ফখরুল। টিভি ক্যামেরায় চেহারা দেখানোর প্রতিযোগিতায় নেতাকর্মীদের ঝগড়া হাতাহাতির পর্যায়ে চলে যায়। তখন নেতাকর্মীদের কড়া ধমক মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

এদিকে বিএনপির বেশ কয়েকজন সিনিয়র নেতার সাথে কথা বলে জানা যায়, দীর্ঘদিন রাষ্ট্র ক্ষমতার বাইরে থাকার কারণে দলের স্থায়ী কমিটির নেতাসহ সিনিয়রদের মানছে না জুনিয়ররা। আর এখন পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে গেছে। প্রতিটি প্রোগামেই হট্টগোল করছে যুবদল-ছাত্রদলের নেতারা। নিয়মিতই দেখা যাচ্ছে, দলের নেতাকর্মীদের ধমক দিয়ে শুরু হচ্ছে সভা-সমাবেশ, শেষ করতেও ধমকাতে হচ্ছে।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি