শুক্রবার ২১ জানুয়ারী ২০২২
  • প্রচ্ছদ » Lead 1 » হঠাৎ কেন বাংলাদেশের প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের এই আচরণ?



হঠাৎ কেন বাংলাদেশের প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের এই আচরণ?


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
14.12.2021

নিউজ ডেস্ক : সম্প্রতি কোনো কারণ ছাড়াই র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটেলিয়ন (র‌্যাব) ও এর কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। কিন্তু যেখানে বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের তালিকায় শীর্ষে অবস্থান করছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সেখানে তাদের এমন নিষেধাজ্ঞা দেয়ার অধিকার তাদের আছে কি না, সে বিষয়ে প্রশ্ন তৈরি হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট মহলের সঙ্গে আলাপনে জানা যায়, শুধুমাত্র আন্তর্জাতিক রাজনীতিতে নিজেদের অবস্থান পোক্ত করতে বাংলাদেশের ওপর এমন বানোয়াট নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে মার্কিনীরা। যার আদতে কোন ভিত্তি নাই। কারণ, খোদ তাদের দেশেই প্রতিবছর হাজারের ওপর মানুষকে বিচারবহির্ভূত হত্যা করা হয়।

এখন প্রশ্ন উঠতে পারে, বাংলাদেশের প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের এমন আচরণ এবারই প্রথম কি না? ৭১ এর মহান মুক্তিযুদ্ধে পাকিস্তানকে সহায়তার মাধ্যমে বর্বর গণহত্যায় বাংলাদেশের বিরুদ্ধে সর্বপ্রথম সমর্থন দেয় যুক্তরাষ্ট্র। বঙ্গবন্ধুসহ জাতীয় ৪ নেতা হত্যাকাণ্ডের হত্যাকারীদেরও পুনর্বাসন করে দেশটি। শুধু তাই নয়, সামরিক শাসক জিয়াউর রহমানকে বৈধতা প্রদানেও ভূমিকা রাখে এই যুক্তরাষ্ট্র।

সে ক্ষেত্রে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে কি ষড়যন্ত্র করেছে, এমন প্রশ্ন না রেখে বলা উচিত, কি করেনি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র?

২০০১ সালে এই যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে আঁতাত করে ক্ষমতায় আসে বিএনপি-জামায়াত। গণহত্যাকারী জামায়াত ইসলামের নেতাদের নিয়ে যায় সংসদে। যার কারণে, জামায়াত তাদের গাড়িতে লাল-সবুজের পবিত্র পতাকা ওড়ানোর সুযোগ পায়। খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে অপারেশন ক্লিন হার্টের নামে নিরাপরাধ মানুষ হত্যার পেছনেও রয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের হাত। যা ইতিমধ্যে প্রমাণিত সত্য। এছাড়া দেশে জঙ্গিবাদের উত্থান ও সিরিজ বোমা হামলাতেও পূর্ণ মদদ ছিল যুক্তরাষ্ট্রের।

এখন দেশ যখন অদম্য গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে, উন্নীত হয়েছে উন্নয়নশীল দেশের কাতারে। গোটা বিশ্বে জঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদ দমনে পাচ্ছে রোল মডেলের স্বীকৃতি, ঠিক তখনই এই অর্জনকে ম্লান করে দিতে মরিয়া জো-বাইডেনরা। তারা চাইছে, জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে আস্থার প্রতীক হিসেবে গড়ে ওঠা র‌্যাবকে প্রশ্নবিদ্ধ করে নিজেদের কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে আন্তর্জাতিক অঙ্গণে বাংলাদেশকে বিব্রত করতে।

এসব দেশ বিরোধী শক্তিকে প্রতিহত করা সময়ের দাবি।
চলুন সচেতন হই, তাদের ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে সজাগ থাকি।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি