নির্বাচন ঘনিয়ে আসায় বিএনপিতে কদর বাড়ছে খালেদা জিয়ার

নিউজ ডেস্ক : বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি দুর্নীতি মামলায় সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াসহ ১১ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের শুনানি পিছিয়েছে। আগামী ২২ ফেব্রুয়ারি নতুন তারিখ রেখেছে আদালত। খালেদা জিয়ার আইনজীবী মাসুদ আহমেদ তালুকদার বলেন, ‘মামলার প্রধান আসামি বেগম খালেদা জিয়া শারীরিকভাবে অনেক অসুস্থ। তাই তার পক্ষে আদালতে হাজিরা দেয়া সম্ভব নয়। সাবেক এই প্রধানমন্ত্রীর পায়ের গোড়ালিতে ব্যথা। তিনি স্বাভাবিক চলাফেরা করতে পারছেন না। তাই বিজ্ঞ আদালতে আমরা সময় প্রার্থনা করেছি।’

তবে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, এভারকেয়ার হাসপাতালে ভালোই আছেন খালেদা জিয়া। শুধু হাজিরা দিতে গেলেই তার ব্যথা শুরু হয়ে যায়। বর্তমানে ২০২৩ সালের নির্বাচনে মনোনয়ন পাবার আশায় নিষেধাজ্ঞা থাকা সত্ত্বেও নতুন করে হাসপাতালের সমানে ভিড় জমাচ্ছেন বিএনপি নেতারা। তিনি দেখা না দিলেও একবার দেখা করার আশায় হাসপাতালের আশপাশে ঘুরছে নেতারা। এতে ত্যক্ত-বিরক্ত হয়ে খালেদা জিয়া পুলিশি নিরাপত্তা চেয়েছেন।

এরইমধ্যে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার পুলিশি নিরাপত্তা চেয়ে আইজিপি বরাবর একটি চিঠি দেয়া হয়েছে। চেয়ারপারসনের একান্ত সচিব এবিএম আবদুস সাত্তার স্বাক্ষরিত এ চিঠিটি আইজিপি বরাবর দেয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে বিএনপির প্রেস উইং কর্মকর্তা শায়রুল কবির খান বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, চিঠির অনুলিপি ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনার ও অতিরিক্ত আইজিপি এবং এসবি বরাবরও দেয়া হয়েছে।

২৫ মাস কারাবন্দী থাকার পর ছয় মাসের জন্য মুক্তি পেয়ে দেড় বছর যাবত নানা অজুহাতে কারাগারের বাইরে আছেন বিএনপি নেত্রী। বিএনপি নেত্রীর ধারণা যদি তিনি নিজেকে সুস্থ দেখান, তবে হয়তো ফের কারাগারে যেতে পারেন। আর এ কারণে কারো সঙ্গেই দেখা করতে চান না খালেদা জিয়া। এ কারণে কতিপয় ‘চাটুকার’ নেতাদের অতিউৎসাহ কমাতে তিনি পুলিশি সহায়তা চেয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.