প্রেস রিলিজ কমিটি হটিয়ে অগ্রগামী ভূমিকায় আসছে বিএনপি

নিউজ ডেস্ক: ‘অনেক হয়েছে, আর নাহ’- বিএনপি এখন এমন পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়ে। দলের তৃণমূল থেকে কেন্দ্রীয় পর্যায়ের সিংহভাগ নেতাকর্মীদের মাঝে এই আবহাওয়া বিরাজ করছে। তারা তারেক রহমানের একক আধিপত্যে অতিষ্ঠ হয়ে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছেন দলীয় কর্মকাণ্ড থেকে। বলছেন, আর কোনদিনই ঘুরে দাঁড়াতে পারবে না বিএনপি। কারণ একটাই, যোগ্য নেতৃত্বের অভাব।

দায়িত্বশীল একটি সূত্র বলছে, সাড়ে তিন বছরেরও অধিক সময় ধরে প্রমাণিত দুর্নীতির মামলার আসামী বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। এই দীর্ঘসময়ে মা ও দলীয় চেয়ারপারসনের অবর্তমানে দলের দায়িত্বে রয়েছেন তারেক রহমান। অথচ তিনি সাংগঠনিক ভঙ্গুরতা কাঠিয়ে উঠতে পারেননি। উপরন্তু নিজের পদ-মনোনয়ন বাণিজ্যের কারণে সৃষ্টি করেছেন বিভক্তি ও দলীয় কোন্দল। যার প্রতিশ্রুতিতে দলের ডাকা কোনো রাজনৈতিক কর্মসূচিতেই নেতাকর্মীরা একাট্টা হন না। এমনকি তৃণমূল থেকে শুরু থেকে কেন্দ্রীয় অনেক নেতাকর্মীরাই তারেকের স্বৈরাচারী নেতৃত্বে মনক্ষুন্ন। এজন্য তারা তার নির্দেশনা এক কান দিয়ে শুনে আরেক কান দিয়ে বের করে দেন কর্মীরা। তবে সেই সিদ্ধান্তকে ‘হাদিস’মেনে চলেন দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, দলের অপেক্ষাকৃত তরুণ তিন আইনজীবী, যুবদলের শীর্ষ পর্যায়ের একজন, ঢাকা মহানগর বিএনপির একজন এবং স্থায়ী কমিটির এক সদস্য। মূলত তারাই তারেকঘনিষ্ঠ। এবং বিএনপির যেকোনো সিদ্ধান্তের ব্যাপারে তাদের সঙ্গেই শলাপরামর্শ করেন বলে জানা গেছে। তবে দলের একটি বৃহৎ অংশই বলছে, তারেক ঘনিষ্ঠ ছাড়া সবাই-ই জানেন এবং মানেন- তারেকের নেতৃত্বে বিএনপি আর কখনোই ঘুরে দাঁড়াতে পারবে না।

বিএনপির একটি নির্ভরযোগ্য সূত্রের তথ্য মতে, ১/১১ এর পর উদ্ভূত পরিস্থিতিতে বিএনপি যে বিপর্যয়ে তৈরি হয়েছিলো, সেখান থেকে এখনো বের হতে পারেনি দলটি। উপরন্তু রয়েছে সাংগঠনিক সমন্বয়হীনতা ও শক্তিশালী রাজনৈতিক কর্মযজ্ঞ। একই সঙ্গে তারেক রহমানের নেতৃত্বে বিএনপি ঘুরে দাঁড়াবে- এমন আশাও ক্রমশই ক্ষীণ হয়ে আসছে তারই কৃতকর্মে।

এমতাবস্থায় সংগঠন শক্তিশালী করার জন্য ‘প্রেস রিলিজ’ কমিটি হটানোর পাশাপাশি উচিত সঠিক দিক নির্দেশনা, যা দলকে করবে অগ্রগামী। অথচ সেটাই তারা পাচ্ছেন না বলে আক্ষেপ করলেন দলের একাধিক কেন্দ্রীয় নেতা।

তারা এই প্রতিবেদককে বলেন, এই মুহূর্তে আমাদের আন্তর্জাতিক অঙ্গনে কোনো বন্ধু নেই। এমনকি চীন ও ভারতের সঙ্গেও আমাদের বৈরী সম্পর্ক। তাই দল এখন কোনো পলিসিতে চলবে, তা তারেক রহমানের ওপর ভর না করেই চলাই শ্রেয় হবে। কারণ তার নেতৃত্বে এতদিন চলেও তারা দলীয় চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার কারামুক্তি করতে পারেননি, পারেননি দলকে পুনর্গঠন করতেও। তাই তারেকের প্রতি তাদের আর আস্থা নেই।

এ ব্যাপারে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার বলেন, দলের ঘুরে দাঁড়ানোর পথে অনেকগুলো বাঁধা রয়েছে। রয়েছে অনেক ভুলও। সেগুলো সহসাই কাটিয়ে ওঠা সম্ভব নয়। তবে মঈন উদ্দিন আহমদকে সেনাপ্রধান করে ম্যাডাম (খালেদা জিয়া) সবচেয়ে বড় ভুল করে গেছেন। ওইখান থেকেই বের হওয়া যাচ্ছে না। খুব অচিরেই সব কাটিয়ে উঠতে আমরা সোচ্চার।

Leave a Reply

Your email address will not be published.