বিদেশে বিএনপির লবিস্ট নিয়োগে টাকার বিষয়ে তদন্ত হবে: তথ্যমন্ত্রী

বিএনপির লবিস্ট নিয়োগে টাকা কিভাবে বিদেশে গেছে তা সরকারের সংশ্লিষ্ট অধিদফতরগুলো তদন্ত করবে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এবং তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

শুক্রবার চট্টগ্রাম সার্কিট হাউজ মিলনায়তনে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির সঙ্গে মতবিনিময় সভায় মন্ত্রী এ কথা জানান।

ড. হাছান মাহমুদ বলেন, দেশ ও জনগণের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করতে বিএনপির নয়াপল্টনের ঠিকানায় বিদেশি লবিস্ট নিয়োগ করা হয়েছে। সরকারের কাছে সেই নিয়োগের সুনির্দিষ্ট প্রমাণ রয়েছে। এই লবিস্ট নিয়োগে বিদেশে কিভাবে টাকা গেছে এবং কে পাঠিয়েছে তা নিয়ে সরকারের সংশ্লিষ্ট অধিদফতরগুলো তদন্ত করবে। এরই মধ্যে তদন্তের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বলেন, যুদ্ধাপরাধীদের বাঁচাতে বিএনপি-জামায়াত জোট বিদেশে লবিস্ট নিয়োগ করেছিল। বিএনপি কি এগুলো অস্বীকার করতে পারবে? আসলে বিএনপির অপকর্ম যখন জনসমক্ষে বেরিয়ে আসে তখন তারা শাক দিয়ে মাছ ঢাকার চেষ্টা করে।

জাতিসংঘের মিশনে র‌্যাবকে নিষিদ্ধ করতে ১২টি মানবাধিকার সংগঠনের চিঠির প্রসঙ্গে সম্প্রচার মন্ত্রী বলেন, জাতিসংঘে র‌্যাবের বিরুদ্ধে যে ১২টি মানবাধিকার সংগঠন চিঠি দিয়েছে, তার মধ্যে দুই থেকে তিনটি ছাড়া বাকিগুলো নাম সর্বস্ব। এসব সংগঠনের নাম আমরা আগে কখনো শুনিনি।

আড়াই মাস আগে করা আবেদন হঠাৎ মিডিয়ায় আসা রহস্যজনক উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, এর পিছনে একটা উদ্দেশ্য আছে বলে আমি মনে করি। হিউম্যান রাইটস ওয়াচ যুদ্ধাপরাধীদের পক্ষ নিয়েছিল। পৃথিবীর অনেক দেশে যখন মানবাধিকার লঙ্ঘিত হয়, তখন তারা কোনো বিবৃতি দেয় না। এরই মধ্যে এসব সংগঠন তাদের সুনাম হারিয়ে ফেলছে। তাদের আহ্বান এখন তেমন গুরুত্বপূর্ণ নয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.