কয়ছরের টানে লন্ডন গেলেন শর্মিলা রহমান

নিউজ ডেস্ক: ২০১৫ সালের ২৪ জানুয়ারি হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মালয়েশিয়ায় মৃত্যুবরণ করেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকো। কোকোর মৃত্যুর পর শর্মিলা রহমান ও দুই কন্যা জাহিয়া রহমান ও জাফিয়া রহমান যুক্তরাজ্যে বসবাস করছেন।

এরপর ২০১৮ সালের মাঝামাঝিতে শর্মিলার সাথে যুক্তরাজ্য বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কয়ছর এম আহমেদের ঘনিষ্ঠতা শুরু হয়। আর এ কারণে সম্পত্তির সুষম বণ্টন নিশ্চিত করা এবং অসুস্থ শাশুড়ি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে দেখতে প্রায় তিন মাস আগে ঢাকা আসলেও শর্মিলার মন পড়েছিলো লন্ডনে। তাই তড়িঘড়ি করে ১৬ জানুয়ারি রাতে ঢাকা ছাড়েন তিনি।

মূলত কন্যাদের সঠিকভাবে লালন পালন ও অভিভাবক শূন্যতা দূর করতে কয়ছরের সাথে একধরনের গাঁটছড়া সম্পর্কে জড়ান শর্মিলা, যা লন্ডন বিএনপির প্রায় সকলেরই জানা। এ কারণে বিভিন্ন সময়ে বিব্রত হন তারেক ও জোবায়দা। যদিও শর্মিলার ঘনিষ্ঠ সূত্রগুলো বলছে, কয়ছর এম আহমেদের সাথে শর্মিলার বিয়ে বা প্রণয়ঘটিত গুঞ্জন পুরোপুরি সত্য নয়। যুক্তরাজ্যে তারেক রহমানের পরিবারের সম্মান ক্ষুণ্ণ করতে একটি মহলের পক্ষ থেকে এমন অপপ্রচার করা হচ্ছে। শর্মিলাকে বিভিন্ন সময়ে আর্থিক ও মানসিকভাবে সহায়তা করেছেন কয়ছর। আর এগুলোর সুযোগ নিয়েই দলের কিছু কুচক্রীরা শর্মিলা ও কয়ছরকে নিয়ে নানা গুজব ছড়াচ্ছে।

শর্মিলা ঘনিষ্ঠ একাধিক সূত্র বলছে, শুরুতে যুক্তরাজ্যে এসে তারেক রহমানের আশ্রয় গ্রহণ করলেও বিভিন্ন সময়ে বিএনপি নেতা কয়ছর এম আহমেদের কাছ থেকে সহায়তা পেয়েছেন শর্মিলা রহমান। যুক্তরাজ্যে স্থায়ীভাবে বসবাসের আবেদনের জন্য দেশটিতে স্থায়ী বাসিন্দা হিসেবে কয়ছর আহমেদের রেফারেন্স নিয়েছেন শর্মিলা। এছাড়া বিভিন্ন সময়ে দুজনকে একত্রে চলাফেরা করতে দেখতে পাওয়ায় লন্ডন বিএনপির রাজনীতি নানা গুঞ্জন চাউর হয়। যদিও কয়ছরকে স্থানীয় গার্ডিয়ান মনে করেন শর্মিলা। এছাড়া শর্মিলার কন্যাদের স্কুলে স্থানীয় অভিভাবক হিসেবে কয়ছরের নাম উল্লেখ করায় গুঞ্জনের বিষয়টি ডালপালা মেলে। শিগগিরই শর্মিলা বিয়ে করছেন বিএনপি নেতা কয়ছরকে, এমন কথা বহুবার রটেছে যুক্তরাজ্য বিএনপির রাজনীতিতে। বাচ্চাদের ভবিষ্যৎ গড়তে ও তাদের অভিভাবকের দায়িত্ব দেয়ায় কয়ছরের সাথে শর্মিলাকে জড়িয়ে গুজব ছড়াচ্ছে খোদ স্থানীয় বিএনপি নেতারা। তবে কন্যাদের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে ও বেগম জিয়ার অনুমতিক্রমে শর্মিলা যদি কয়ছরকে বিয়ে করেন তবে, সেটিই ভালো হবে বলে মনে করছেন যুক্তরাজ্য বিএনপির অনেক নেতা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.