যে কারণে বদনাম কমছে না বিএনপির

বিএনপি

নিউজ ডেস্ক: ব্যক্তি ও দলগত স্বার্থ উদ্ধারের বাইরে এসে বিএনপি কখনও জনগণের স্বার্থে রাজনীতি করে না। জনগণকে গৌণ হিসেবে দেখে দলগত স্বার্থ উদ্ধারে অতিমাত্রায় নেতিবাচক রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়েছে বিএনপি। এতে ধীরে ধীরে দলটি জনবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ছে বলেও মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের একজন সাবেক অধ্যাপক বলেন, বলতে দ্বিধা নেই যে- বিএনপি জনগণের স্বার্থ রক্ষার জন্য কাজ করে না। কাজ করে খালেদা জিয়া এবং তারেক রহমানের স্বার্থ রক্ষার স্বার্থে। সজ্জন হিসেবে পরিচিত মির্জা ফখরুলের মতো মানুষও খালেদা ও তারেকের মতো দুর্নীতিপরায়ণ নেতৃত্বের পক্ষে সাফাই গান। জনগণের দাবি-দাওয়া বা তাদের জীবনঘনিষ্ঠ কোনো অনুষঙ্গ কখনই বিএনপির রাজনীতির প্রতিপাদ্যে পরিণত হয়নি। দলটি সবসময় স্বার্থসিদ্ধির পেছনে সময় ব্যয় করেছে। অতীতেও সেটি দেখা গেছে। ক্ষমতায় থাকাকালীন সময়েও দলটির মন্ত্রী ও দায়িত্বশীল নেতারা ব্যক্তি ও দলগত লুটপাট, সীমাহীন দুর্নীতিতে নিমজ্জিত ছিলো। ফখরুলরা দেশের জন্য, দশের জন্য কখনই রাজনীতি করেনি।

তিনি আরও বলেন, বিএনপি দেশের উন্নয়ন নয়, ব্যক্তি ও দলগত উন্নয়নের রাজনীতিতে বিশ্বাস করে। দলটির বিগত এক দশকের রাজনীতি পর্যালোচনা করলে দেখা যায়, রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা দখল, দেশকে অস্থিতিশীল করা এবং বাংলাদেশের বদনাম করে দলগত স্বার্থ উদ্ধারে রাজনীতি করেছে বিএনপি। দেশের মানুষের পক্ষে কথা বলাটা বিএনপির রাজনৈতিক অভিধানে অনুপস্থিত। দেশ নয়, দশ নয়- নিজেদের পেট ভরার রাজনীতি করেন তারেক-ফখরুলরা। এটি দেশের রাজনীতির জন্য অত্যন্ত হতাশাজনক ব্যাপার।

এদিকে বিএনপির বিরুদ্ধে আনিত এমন অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার বলেন, দেশের রাজনীতিতে বিএনপি একটি শক্তিশালী দল। দেশ ও দশের জন্য আমরা রাজনীতি করি না, বিষয়টি পুরোপুরি সত্য নয়। হ্যাঁ- এটি সত্য যে আমাদের বিগত শাসনামল নিয়ে কিছু বিতর্ক আছে। আমরাও দেশকে নিয়ে ভাবি, তবে কেউ যদি দেশকে বাদ দিয়ে নিজেকে নিয়ে বেশি ভাবে সেটির দায় তো পুরো দলকে দেয়া যায় না। ভুল-ত্রুটি নিয়েই তো সংগঠন চলে। ইটস টাফ টু হ্যান্ডেল পলিটিক্স অনেস্টলি!

Leave a Reply

Your email address will not be published.