সব দোষ তারেককে দিলেন গয়েশ্বর

নিউজ ডেস্ক: বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার জামিন ইস্যুতে কোনো আন্দোলন গড়ে তুলতে না পারায় তারেক রহমানকে দায়ী করে ১১ মে সংবাদ সম্মেলন করেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়।

উক্ত সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, বলতে দ্বিধা নেই, একমাত্র তারেক রহমানের কারণেই বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা যাচ্ছে না। ঈদ শেষে আমাদের আন্দোলন করার কথা ছিলো, কিন্তু তারেক রহমানের সিদ্ধান্তের কারণে আমরা আন্দোলন থেকে সরে আসি। এটি দুঃখজনক। মাঝে মাঝে মনে হয়, দলে তারেক রহমান না থাকলে এতদিনে আমরাই হয়তো সরকার চালাতাম।

গয়েশ্বরের এমন কথা লন্ডন পর্যন্ত পৌঁছালে বিব্রত হয়ে পড়েন তারেক রহমান। জানা যায়, এ কারণে দল থেকে বহিষ্কার হতে পারেন বিএনপির প্রবীণ এই নেতা। যদিও জনসাধারণকে বলা হচ্ছে, নেতৃত্ব পরিবর্তনের দাবি তোলায় শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগ এনে তাকে বহিষ্কার করা হচ্ছে। এদিকে পরিবর্তন চাওয়া গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের দাবিকে উসকানিমূলক বলে চালিয়ে দিচ্ছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির অন্য সদস্যরা। তবে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন বলছেন ভিন্ন কথা।

জমির উদ্দিন বলছেন, ইদানীং কিছু নেতা বিএনপির নেতৃত্বে পরিবর্তন চাচ্ছেন। তারা চাইছেন না, বিএনপির নেতৃত্বে তারেক রহমান কিংবা মির্জা ফখরুল থাকুক। তবে এই অভিযোগে কিন্তু কাউকে বহিষ্কার করা হয়নি। যদি ভবিষ্যতে কাউকে বহিষ্কার করা হয়, সেটা শুধুমাত্র শৃঙ্খলা ভঙ্গের কারণেই হবে। আর কেউ যদি দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের পরিবর্তন চায়, সে কখনোই বিএনপির সমর্থক হতে পারে না। এটাও মাথায় রাখতে হবে।

এ প্রসঙ্গে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, সিনিয়র নেতাদের পদত্যাগ চাওয়ার কারণে হয়তো বহিষ্কার হতে পারেন গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। বলে রাখা ভালো, এর আগে তারেক রহমানের পদত্যাগ চাওয়ায় দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের তৃণমূল বিএনপির ৪৪ নেতাকে বহিষ্কার করা হয়েছিলো।

Leave a Reply

Your email address will not be published.