গুজবে কান না দিয়ে আগে হিসাব মিলিয়ে নিন

শ্রীলঙ্কা-বাংলাদেশ

নিউজ ডেস্ক: প্রতিবেশী দেশ শ্রীলঙ্কার দুরবস্থা দেখে যখন অনেক মানুষ দুঃখ করছে, তখন কিছু কথিত যুক্তিবাদী শ্রীলঙ্কার জায়গায় বাংলাদেশকে কল্পনা করছে। তারা গুজব ছড়াচ্ছে বাংলাদেশ যেকোনো সময় শ্রীলঙ্কা হতে পারে। এখন কথা হলো- ওদের যে ভাবনা আর গুজব তার কী কোনো ভিত্তি আছে? আসুন একটু হিসাব মিলিয়ে দেখি।

শ্রীলঙ্কার চেয়ে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অবস্থা অনেক শক্তিশালী। আগামী কয়েক দশকে বাংলাদেশে শ্রীলঙ্কার মতো অবস্থার সৃষ্টি হবে না বলেই মত। এর পেছনে রয়েছে বিস্তর কিছু কারণ। যেমন- বাংলাদেশের খাদ্য পুরোটাই উৎপাদন নির্ভর। কিন্তু শ্রীলঙ্কার প্রধান খাদ্যের পুরোটাই আমদানি নির্ভর।

অপরিকল্পিত ব্যয় ও চড়া সুদের কঠিন শর্তের ঋণে ধ্বসে পড়েছে লঙ্কাভূমি। কিন্তু বাংলাদেশের ঋণ সহজ শর্তে এবং দীর্ঘ মেয়াদী ও স্বল্প সুদে নেয়া। আর বাংলাদেশের রিজার্ভে যে টাকা আছে, তাতে কোনো উৎপাদন যদি নাও হয় তাতেও অর্ধ বছর চালিয়ে নেয়া সম্ভব হবে। অন্যদিকে প্রবাসীদের কষ্টার্জিত টাকা আর পোশাক শিল্পের আয় তো বাংলাদেশের সোনার খনি।

এর মাঝে যেভাবে বাংলাদেশ কোভিড-১৯ সামলেছে, তাতেই বাংলাদেশের সক্ষমতা বিশ্ববাসী দেখেছে। দেখেনি শুধু স্বার্থান্বেষী দেশদ্রোহী মহল! এখন করোনার ধাক্কাতেও যখন বাংলাদেশ টলেনি, তখন কতটুকু টলাতে পারবে সেই হিসাব কষতে ব্যস্ত বিএনপি জামায়াত অপশক্তি।

এ ব্যাপারে রাজনৈতিক সমালোচক অধ্যাপক এ আরাফাত বলেন, যুদ্ধবিগ্রহ থেকে সেরে উঠেই বাংলাদেশ ৩ বছরের মাথায় ভেঙে পড়া অর্থনীতিকে টেনে তুলে। যার বর্তমান রুপ রাজস্ব খাতের পাহাড়সমান অর্জন। দেশ এখন এগিয়েছে। এরপরও একটি দেশবিরোধী অপশক্তি এ নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে। তাদেরকে আমি বলবো, গুজব বিভ্রান্তি ছড়ানোর আগে বাংলাদেশের সামগ্রিক উন্নয়ন সম্পর্কে জেনে নিন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.