কুমিল্লা সিটি নির্বাচন নিয়ে গৃহবিবাদ বিএনপিতে

আগামী ১৫ জুন অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন নিয়ে কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা ও মহানগর বিএনপিতে গৃহবিবাধ চরমে পৌঁছেছে। কুমিল্লা সিটির বর্তমান মেয়র মনিরুল হক সাক্কু ও কুমিল্লা মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি নিজাম উদ্দিন কায়সার দুইজনেই স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মেয়র পদে নির্বাচন করার জন্য এরই মধ্যে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন। ফলে সাক্কু-কায়সারে দুই ভাগে বিভক্ত এবার কুমিল্লার বিএনপি।

কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক ও মেয়র মনিরুল হক সাক্কুকে কেন্দ্রীয় বিএনপির নির্বাহী সদস্যের পদ থেকে এরই মধ্যে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। দলের নেতাকর্মীদের সঙ্গে কোনো যোগাযোগ নেই এবং দলীয় কর্মকাণ্ডে অংশ নেন না এমন অভিযোগ আনা হয়েছিল তার বিরুদ্ধে। এরপর থেকেই দলে একেবারে চুপ হয়ে যান মেয়র সাক্কু।

এদিকে, আসন্ন কুসিক নির্বাচনে অংশ নেয়ার জন্য প্রচারণা চালাচ্ছেন মনিরুল হক সাক্কু ও নিজাম উদ্দিন কায়সার। এই দুই প্রার্থীর প্রচারণায় বিভক্ত জেলা ও মহানগর বিএনপিও।

এ বিষয়ে মেয়র মনিরুল হক সাক্কু বলেন, আমার বিপক্ষে কে নির্বাচন করল সেটা আমার দেখার বিষয় নয়, নিজামুদ্দিন কায়সারকে আমি আমার প্রতিদ্বন্দ্বী মনে করি না, নগরবাসী তথা আমার কর্মী-সমর্থকদের দাবির প্রেক্ষিতেই আমি ভোটে অংশগ্রহণ করছি, নগরবাসী আমার বিগত দিনের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড বিবেচনায় নিয়ে আশা করি আমাকেই ফের তাদের নগরপিতা হিসেবে নির্বাচিত করবে বলে আমি আশাবাদী।

কুসিক নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী নিজামুদ্দিন কায়সার বলেন, নির্বাচনে ধানের শীষ নিয়ে সাক্কু বিজয়ী হয়ে বিএনপির অসংখ্য নেতাকর্মীকে মামলা দিয়ে হয়রানি করেছে, তাই দলীয় নেতাকর্মীদের জোরালো দাবির প্রেক্ষিতেই আমি প্রার্থী হয়েছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.