বিএনপি নেতা হাবিবের বিরুদ্ধে জিডি

সাতক্ষীরার কলারোয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গাড়ি বহরে হামলার মামলায় সাজাপ্রাপ্ত বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা ও সাবেক এমপি হাবিবুল ইসলাম হাবিবের বিরুদ্ধে জিডি করেছেন সাতক্ষীরার পাবলিক প্রসিকিউটর অ্যাডভোকেট আব্দুল লতিফ। বুধবার (২৯ জুন) সাতক্ষীরা সদর থানায় এ জিডি করা হয়।

জিডিতে অ্যাডভোকেট আব্দুল লতিফ উল্লেখ করেছেন, ২০০২ সালের ৩০ আগস্ট কলারোয়া বিএনপি অফিসের সামনের রাস্তায় হাবিবুল ইসলাম হাবিবের নেতৃত্বে সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা তৎকালীন বিরোধী দলীয় নেত্রী ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গাড়ি বহরে গুলিবর্ষণ ও বোমা হামলা করে।

এ সংক্রান্ত ২টি মামলায় বুধবার সাতক্ষীরা বিশেষ ট্রাইব্যুনাল-৩ এ সাক্ষ্য গ্রহণের জন্য দিন ধার্য ছিল। মামলা চলাকালীন বাংলাদেশের অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল এম এম মুনীর, সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল মুহাম্মদ শাহীন, সুপ্রিম কোর্ট বার এসোসিয়েশনের ভাইস প্রেসিডেন্ট অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ হোসেন আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

বিচারক দুপুর ১২টা ৪৫ মিনিটের দিকে মামলার পরবর্তী তারিখ ১৪ জুলাই ২০২২ তারিখে ধার্য করায় এজলাস কক্ষ ত্যাগ করার সময় আদালত কক্ষে থাকা উক্ত মামলার আসামি হাবিবুল ইসলাম হাবিব এবং আরো কয়েকজন আসামি অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল এস এম মুনীরকে সরাসরি জীবননাশের হুমকি প্রদান এবং বিভিন্ন জিনিসপত্র তার দিকে নিক্ষেপ করেন। জিডিতে মামলার পরবর্তী ধার্য দিনে নিরাপত্তা ব্যবস্থা আরো জোরদার করার কথা বলা হয়েছে।

আইনজীবী আব্দুল লতিফ বলেন, বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা ও সাবেক এমপি হাবিবুল ইসলাম হাবিবসহ অন্য আসামিদের বিরুদ্ধে অস্ত্র ও বিস্ফোরক মামলায় ২৯ জুন সাক্ষ্য গ্রহণের পর এজলাস কক্ষ ত্যাগ করার সময় হাবিবসহ আরো কতিপয় আসামি অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল এস এম মুনীরকে সরাসরি জীবননাশের হুমকি প্রদান করেন। এছাড়া বিভিন্ন জিনিসপত্র অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেলের দিকে নিক্ষেপ করেন। এ ঘটনায় আমি সাতক্ষীরা সদর থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছি।

সাতক্ষীরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা স ম কাইয়ূম জানান, আইনজীবী আব্দুল লতিফ সাতক্ষীরা সদর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেছেন। তদন্ত পূর্বক আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরও দেখুন

২১ আগস্ট: দেশকে নেতৃত্বশূন্য করার সেদিনের মিশনে

Share this… Facebook 0 Twitter Telegram Linkedin নিউজ ডেস্ক: স্বাধীনতার প্রাক্কালে ১৪ ডিসেম্বর যেভাবে বুদ্ধিজীবী হত্যাকাণ্ড চালানো হয়েছিল, ঠিক একই উদ্দেশ্যে ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট আওয়ামী লীগের সন্ত্রাসবিরোধী জনসভায় চালানো হয়েছিল ভয়াবহ গ্রেনেড হামলা। দেশে বিরোধী মতকে দমন ও নিশ্চিহ্ন করার অংশ হিসেবে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার উপর এই হামলা […]

বিস্তারিত

‘শেখ হাসিনা বেঁচে গেছে আমাদের সর্বনাশ হচ্ছে’

Share this… Facebook 0 Twitter Telegram Linkedin নিউজ ডেস্ক : ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট। তারেক জিয়ার পরিকল্পিত গ্রেনেড হামলা মঞ্চস্থ হয় বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে। মূল পরিকল্পনা করেছিলেন তারেক জিয়া হাওয়া ভবনে বসে। এই পরিকল্পনার লক্ষ্য ছিল একটাই- শেখ হাসিনাকে হত্যা করা এবং এই হত্যাকাণ্ডের পর এটি আওয়ামী লীগের অভ্যন্তরীণ কোন্দল হিসেবে চালিয়ে দেওয়া। কিন্তু অলৌকিকভাবে বেঁচে […]

বিস্তারিত

জোট নেতাদের প্রশ্ন, নেতৃত্ব দেবে কে?

Share this… Facebook 0 Twitter Telegram Linkedin নিউজ ডেস্ক: সরকারবিরোধী ‘বৃহত্তর রাজনৈতিক জোট’ গড়তে এরই মধ্যে ছোট-বড় সমমনা ডান-বাম ও ইসলামী ২২টি দলের সঙ্গে প্রাথমিক সংলাপ শেষ করেছে বিএনপি। ‘গণতন্ত্র মঞ্চে’র শরিক পাঁচটি দলের সঙ্গেও সংলাপ করে দলটি। কিন্তু সবারই একই প্রশ্ন নেতৃত্ব দেবে কে? তারেক রহমানের নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ হতে চায় না কোনো জোট নেতা। […]

বিস্তারিত