কুমিল্লায় মণ্ডপের নিরাপত্তায় সক্রিয় আওয়ামী লীগ

এবারের দুর্গাপূজার নিরাপত্তায় কুমিল্লাতে নিয়োজিত আছেন আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। গত বছরের নাশকতার পর এবার দুর্গোৎসব উদ্‌যাপন নিয়ে শঙ্কা কাটাতে প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীও তৎপর রয়েছে। প্রশাসন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী, জনপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ ও অন্যান্য ধর্মীয় প্রতিনিধিদের সহযোগিতায় সনাতন ধর্মাবলম্বীদের মনে এবার সহিংসতার শঙ্কা নেই বলে জানা গেছে।

কুমিল্লা সিটি করপোরেশন এলাকা ও জেলার ১৭টি উপজেলায় ৭৯৪টি মণ্ডপে শারদীয় দুর্গোৎসব অনুষ্ঠিত হচ্ছে। উৎসবের আমেজ ফিরে এসেছে প্রতিটি মণ্ডপে।

কুমিল্লার পূজা উদ্‌যাপন পরিষদের নেতারা ব্যবস্থাপনা নিয়ে সন্তুষ্ট বলে জানান।

তারা বলছেন, এবার আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও প্রশাসনের বাড়তি তৎপরতা দেখছেন তারা। এতে অনেকটা ‘স্বস্তিতেই’ পূজা উদ্‌যাপনের প্রস্তুতি শেষ করেছেন। শনিবার মহাষষ্ঠীর মধ্য দিয়ে সারা দেশের মতো কুমিল্লায় শুরু হয় হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের ৫ দিনের সর্বজনীন শারদীয় দুর্গোৎসব। কুমিল্লা নানুয়ার দিঘির পাড়ের পূজা মণ্ডপেও ছিল হাজার হাজার ভক্তের উপস্থিতি। ছিল নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা।

শনিবার মহাষষ্ঠীর দিন ও রবিবার দুপুর পর্যন্ত কুমিল্লা নগরীর মন্দির, ক্লাব, সংগঠন ও পারিবারিক ভাবে আয়োজিত পূজা মণ্ডপগুলো ঘুরে দেখা গেছে মণ্ডপে উৎসবের আমেজ, সনাতন ধর্মাবলম্বীরা, ভক্তরা পূজা দিচ্ছেন।

কুমিল্লা নগরীর রাজেশ্বরী কালিবাড়ি, কাত্যায়নী কালিবাড়ি, রামকৃষ্ণ আশ্রম, ঈশ্বর পাঠশালা, করুণাময় কালিবাড়ি, শিববাড়ি মন্দির, তালপুকুর পাড় মন্দির, আলোড়ন সংঘ, মা স্মৃতি চরণ সংঘ, রাধারানী পারিবারিক মণ্ডপ, ঋষি পট্টি মন্দির, ছাতিপট্টি মন্দির ও সিদ্ধেশ্বরী কালি মন্দিরসহ প্রতিটি মন্দিরে দেখা গেছে উপচে পড়া ভিড়, দেখা গেছে অন্য ধর্মের লোকজনকেও।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পাশাপাশি নগরীর ঋষি পট্রি কালিবাড়ি মণ্ডপের নিরাপত্তায় রয়েছেন কুমিল্লা নগরীর ৫ নম্বর ওয়ার্ডের আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এ কে সামাদ সাগর ও একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির কুমিল্লা মহানগর এর সাধারণ সম্পাদক যুবলীগ নেতা আনোয়ার হোসেন মিঠু কর্মীদের নিয়ে পালা করে মণ্ডপের নিরাপত্তা দিচ্ছেন।

জানতে চাইলে, এ কে সামাদ সাগর বলেন, অসাম্প্রদায়িক চেতনা নিয়েই বাংলাদেশ স্বাধীন হয়েছে। সব ধর্মাবলম্বীরা নির্বিঘ্নে তাদের ধর্মীয় আচার-অনুষ্ঠান পালন করবে, সম্প্রীতি বজায় থাকুক তাই আমরা মণ্ডপগুলোতে অবস্থান করছি। নাশকতা এড়াতে আমরা মন্দির পাহারা দিচ্ছি।

২০২০ সালের দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হয়েছিল সীমিত পরিসরে। করোনা পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হয়ে আসায় গত বছর এ উৎসব উদ্‌যাপনের ছিল ব্যাপক। কিন্তু কুমিল্লার নানুয়ার দিঘির পাড়ের এক পূজা মণ্ডপে পবিত্র কোরআন শরিফ উদ্ধারের পর পূজার আনন্দ ম্লান হয়ে যায় মুহূর্তেই।

যেকোনো প্রকার অপতৎপরতা ঠেকাতে সব পূজা মণ্ডপের খোঁজ খবর রাখছেন কুমিল্লা সদর আসনের সংসদ সদস্য ও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার। তিনি নিয়মিত যোগাযোগ রাখছেন প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তাদের সঙ্গে।

পূজা মণ্ডপের নিরাপত্তায় এমপি বাহারের নির্দেশনায় আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও স্বেচ্ছাসেবক লীগের সদস্যদের দিয়ে প্রতিটি মণ্ডপের পাহারায় কমিটি করে দিয়েছেন।

তিনি এরই মধ্যে ঘোষণা দিয়েছেন এ বছর নানুয়ার দিঘির পাড়ের ওই মণ্ডপসহ প্রতিটি স্থানে সর্বোচ্চ সতর্কতায় পূজা উদ্‌যাপন করা হবে।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে এমপি বাহার বলেন, এ বছর আমরা সর্বোচ্চ সতর্ক আছি। নানুয়ার দিঘির পাড়ে এবার অবশ্যই জাঁকজমক ভাবে পূজা হবে। এবার যদি কেউ কোনো পূজা মণ্ডপে নাশকতা করার চেষ্টা করে, সে পালিয়ে বাঁচতে পারবে না। এবার কোনো ষড়যন্ত্র হলে ষড়যন্ত্রকারীদের কঠোর হাতে দমন করা হবে। আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের পক্ষ থেকে কুমিল্লা নগরীর প্রতিটি পূজামণ্ডপ এলাকায় স্বেচ্ছাসেবী কাজ করবে।

কুমিল্লার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ কামরুল হাসান বলেন, এবার নানুয়ার দিঘির পাড়সহ জেলার সবক’টি পূজামণ্ডপে সর্বোচ্চ সতর্কতা থাকবে। সিসিটিভি ক্যামেরা স্থাপনের পাশাপাশি পুলিশ, র‌্যাব ও আনসার সদস্যদের দিয়ে সার্বক্ষণিক পাহারাসহ বেশ কিছু পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে।

তিনি জানান, নগরীর নানুয়ার দিঘিপাড়ের মণ্ডপে এবারের দুর্গাপূজায় থাকবে সিসিটিভি ক্যামেরাসহ সার্বক্ষণিক কড়া নিরাপত্তা।

কুমিল্লা পূজা উদ্‌যাপন পরিষদের সভাপতি শিবু চন্দ্র বলেন, প্রশাসন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তা, সব ধর্মাবলম্বী ও সমাজের সব প্রতিনিধিদের অংশগ্রহণে এবারের পূজা উৎসবে পরিণত হয়েছে।

তিনি সবার কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

গত বছরের ১৩ অক্টোবর ভোরে কুমিল্লা নগরীর নানুয়া দিঘির পাড়ে শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে তৈরি অস্থায়ী পূজামণ্ডপে পবিত্র কোরআন শরিফ পাওয়া যায়। ওই ঘটনাকে কেন্দ্র করে নগরীর চারটি মন্দির ও সাতটি পূজামণ্ডপে হামলা, ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগ ঘটে। এ ছাড়া নগরীর ঠাকুরপাড়া এলাকায় রক্ষাকালী মন্দির, কাপড়িয়াপট্টি শ্রী শ্রী চান্দমনি রক্ষাকালী মন্দির, মনোহরপুর এলাকার রাজ রাজেশ্বরী কালীবাড়ি মন্দিরেও সহিংসতা হয়েছিল সেদিন।

রাজেশ্বরী কালীবাড়ি মন্দিরে সহিংসতার সময় ইটের আঘাতে আহত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় দিলীপ কুমার দাস নামে একজন মারা যান।

এসব ঘটনার প্রেক্ষিতে শঙ্কা ও আতঙ্ক থাকলেও প্রশাসনের আশ্বাসে পূজার আনন্দেই মেতে উঠতে চান বলে জানালেন কুমিল্লা জেলা পূজা উদ্‌যাপন পরিষদের নেতারা।

কুমিল্লার পূজামণ্ডপে কোরআন শরিফ রাখা ও সহিংসতার গত বছরের ঘটনায় মোট ১২টি মামলা হয়েছিল কুমিল্লার বিভিন্ন থানায়। ঘটনার পরপরই এসব মামলার মধ্যে ছয়টির তদন্তের দায়িত্ব পায় কুমিল্লার সিআইডি।

বাকি ছয়টি মামলার মধ্যে কুমিল্লা পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) তদন্তের দায়িত্ব পায় চারটি এবং কুমিল্লা কোতোয়ালি মডেল থানা পায় দুটি মামলার দায়িত্ব।

ওই ১২টি মামলার মধ্যে ছয়টির তদন্ত শেষ করে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দিয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। এর মধ্যে পাঁচটি মামলার অভিযোগপত্র দিয়েছে সিআইডি। আর পিবিআই দিয়েছে একটি মামলার। বাকি মামলাগুলোও তদন্ত শেষ পর্যায়ে রয়েছে বলে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন।

নগরীর নানুয়ার দিঘির পাড়ের পূজামণ্ডপে কোরআন শরিফ রাখার ঘটনার আসামি ইকবাল হোসেনের মামলাটির তদন্ত করছে সিআইডি। ইকবাল নগরীর ১৭ নম্বর ওয়ার্ডের দ্বিতীয় মুরাদপুর-লস্কর পুকুর এলাকার বাসিন্দা। এ ছাড়া ওই মামলায় সন্দেহভাজন আসামি হিসেবে আছেন নগরীর মৌলভীপাড়ার ইকরাম হোসেন ওরফে রেজাউল হক, দারোগাবাড়ির মাজারের সহকারী খাদেম নগরীর উত্তর চর্থা এলাকার আশিকুর রহমান ফয়সাল, তার সঙ্গী মো. হুমায়ন কবির ও কুমিল্লা সিটির সাবেক মেয়র মনিরুল হক সাক্কুর ব্যক্তিগত সহকারী হিসেবে পরিচিত মহিউদ্দিন আহমেদ বাবু। এ মামলায় ইকবাল হোসেন ছাড়া বাকি আসামিরা জামিনে আছেন বলে জানিয়েছে সিআইডি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও দেখুন

‘ফিল্ডার গাড়িতে গরু চুরি’ করে বিএনপি নেতা

নিউজ ডেস্ক : দীর্ঘদিন ধরে সিলেট, মৌলভীবাজারের বিভিন্ন এলাকায় গরু চুরি হওয়ার ঘটনায় আতঙ্কে ছিল এই এলাকার বাসিন্দারা। অনেক পাহারা বসিয়েও তারা চোর ধরতে পারছিল না। ধরবেই বা কীভাবে- চোর যে খুব ধুরন্ধর। গরু চুরি করে বিলাসবহুল গাড়িতে করে। গরু চুরি করে গাড়িতে তুলে সবার সামনে দিয়েই চলে যায় কিন্তু কেউ বুঝতে পারে না। সোমবার […]

বিস্তারিত

লোকসমাগমের জন্য ৫ কোটি টাকা চাইলো রাজশাহী বিএনপি!

নিউজ ডেস্ক : আগামী ৩ ডিসেম্বর রাজশাহীতে বিএনপির সর্বকালের সর্ববৃহৎ সমাবেশ করতে চায় রাজশাহী বিএনপিসহ কেন্দ্রীয় নেতারা। অন্যান্য বিভাগীয় সমাবেশের চেয়ে বেশি লোকসমাগমের জন্য চলছে দিনরাত প্রস্তুতি। রাজশাহী বিএনপির নেতাকর্মীরা বিরিয়ানির দাওয়াত আর নগদ টাকা দিচ্ছেন বাড়ি বাড়ি গিয়ে। তবে এক চাঞ্চল্যকর তথ্য জানা গেছে, লোকসমাগমের জন্য দলীয় হাইকমান্ডের কাছে ৫ কোটি টাকা দাবি করেছে […]

বিস্তারিত

কোথায় ফালু? কোথায় খালেদা?

নিউজ ডেস্ক: বিগত চার বছর রাজনীতির বাইরে কখনো কারাগার, কখনো হাসপাতাল আবার কখনো গুলশানের বাসায় দিন পার করছেন বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। এসময়ে অসংখ্য নেতাকর্মী খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করতে আসলেও একটি বারের জন্যেও যোগাযোগ করেনি বিএনপি চেয়ারপারসনের সাবেক উপদেষ্টা ও দুর্নীতিগ্রস্ত পলাতক ব্যবসায়ী মোসাদ্দেক আলী ফালু। এমনকি পরবর্তীতে খালেদা জিয়া তার বাসভবন ফিরোজাতে […]

বিস্তারিত