সিজিএসের জিল্লুর ও গণতন্ত্রের এক নীরব ঘাতক

নিউজ ডেস্ক: গণতন্ত্র ও বাকস্বাধীনতার মুখোশের আড়ালে এক নীরব ঘাতক হিসেবে কাজ করছেন সেন্টার ফর গর্ভনেন্স স্ট্যাডিজের (সিজিএস) নির্বাহী পরিচালক জিল্লুর রহমান। যিনি বিভিন্ন অনুষ্ঠানে বিদেশি রাষ্ট্রদূত এবং বিতর্কিত ব্যক্তিদের সামনে এনে নানান স্পর্শকাতর ও অভ্যন্তরীণ ইস্যুতে নিয়ম বহির্ভূতভাবে প্রশ্ন করে পরিস্থিতি ঘোলাটে করার চেষ্টা করছেন।

জানা যায়, বিভিন্ন প্রোগ্রামে দেশের গণতন্ত্র ও সাংবিধানিক বিধি লঙ্ঘন করে বিদেশি অতিথিদের কাছে দেশের সার্বভৌম সংক্রান্ত প্রশ্ন করছেন। যা দেশ ও জাতির জন্য ক্ষতিকর। শুধু তাই নয়, কোন অতিথি আসবে, তাদের কাকে কী প্রশ্ন করা হবে সেটাও এজেন্ডাভিত্তিক পূর্বনির্ধারণ করে রাখছে সিজিএসের এই কর্মকর্তা।

গত রবিবার (২০ নভেম্বর) সিজিএস মিট দ্য অ্যাম্বাসেডর অনুষ্ঠানে ঢাকায় নিযুক্ত বিদেশি কূটনৈতিকদের বাংলাদেশের জাতীয় নির্বাচন ও রাজনৈতিক পরিস্থিতির মতো স্পর্শকাতর ও অভ্যন্তরীণ বিষয়ে প্রশ্ন করা হয়। শুধু তাই নয়, সেখানে অতিথিদের মুখ থেকে একটি নির্দিষ্ট মহল সন্তুষ্ট হবে এমন উত্তর বের করানোর চেষ্টা করেন জিল্লুর।

বিশ্লেষকরা এ ধরনের ঘটনাকে কূটনৈতিক শিষ্টাচার বহির্ভূত বলে আখ্যা দেন। তাদের বক্তব্য থেকে জানা যায়, একটি মহলের বিশেষ এজেন্ডা বাস্তবায়নে বিদেশি রাষ্ট্রদূতদের কাছে অভ্যন্তরীণ ও স্পর্শকাতর ইস্যুতে প্রশ্ন ছুড়ে দিচ্ছে সিজিএস। যা এদেশের সার্বভৌমত্বের জন্য হুমকি।

এদিকে এসব নিয়ে বিস্তর অভিযোগও উঠেছে তার বিরুদ্ধে। কিন্তু কোনো অভিযোগই কেয়ার করেন না বলে জানিয়েছেন তিনি। কেন তিনি কাউকে তোয়াক্কা করেন না, বেরিয়ে এসেছে সে তথ্যও। বিএনপির মিডিয়া সেলের নিয়ন্ত্রক জহিরুদ্দিন স্বপনের সঙ্গে রয়েছে জিল্লুরের বিশেষ সখ্যতা। তার মাধ্যমে লন্ডনে তারেকের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ বাড়িয়েছে তার শক্তি। এমনটাই মনে করছেন আইনজ্ঞরা।

তবে জিল্লুরের বিরুদ্ধে এমন স্বাধীনতা বিরোধী এবারই প্রথম নয়। এর আগেও টিভি টকশোতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের খুনি কর্নেল আবদুর রশীদকে স্টেজে তুলে তার সাক্ষাৎকার নিয়েছিলেন। যা তীব্র সমালোচনা ও বিতর্কের জন্ম দিয়েছিল।

এছাড়াও করোনা মহামারির সময় লাখো মানুষের জীবন ঝুঁকিতে ফেলা ও জাল সার্টিফিকেট কেলেঙ্কারির হোতা প্রতারক সাহেদকে নিয়ে একের পর এক অনুষ্ঠান করেন। এতেই ফুটে উঠে তার দুর্নীতির সঙ্গে ঘনিষ্ঠতার চিত্র।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও দেখুন

বিভক্ত বিএনপি, কেন্দ্রীয় নেতাদের সামনেই দু’পক্ষের সংঘর্ষ

রাজশাহীর মাদ্রাসা মাঠে বিএনপির গণসমাবেশে কেন্দ্রীয় নেতাদের সামনেই দুই পক্ষের মধ্যে মারামারি ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় প্ল্যাকার্ড ছোড়াছুড়ি করেন উভয়পক্ষের নেতাকর্মীরা। ব্যক্তিগত শো-ডাউনকে কেন্দ্র করে সাবেক সংসদ সদস্য নাদিম মোস্তফার বক্তব্য চলাকালে এ ঘটনা ঘটে। কেন্দ্রীয় নেতারা এ সময় বারবার তাদের নিবৃত্ত করার নির্দেশ দিলেও মারামারি চলতে থাকে। দুই পক্ষই সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। […]

বিস্তারিত

লাশের সন্ধানে বিএনপি

আগামী ১০ ডিসেম্বর ঢাকায় মহাসমাবেশে সন্ধানে বিএনপি। যেকোনো মূল্যে লাশ পড়তে হবে এটিই বিএনপির মূল আরাধ্য এবং এ ব্যাপারে বিএনপির নেতা কর্মীদেরকে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। আগামী ১০ ডিসেম্বর ঢাকার মহাসমাবেশকে সামনে রেখে বিভিন্ন পর্যায়ে বিএনপি এখন সমাবেশ করছে। ওয়ার্ডে এবং থানাগুলোতে বিএনপির এই সমস্ত কর্মীসভা গুলোতে কোনো রকম ছাড় না দেওয়া এবং পুলিশ যদি সামান্যতম […]

বিস্তারিত

লক্ষ্মীপুরে ছাত্রদল নেতা গ্রেফতার

লক্ষ্মীপুরে পুলিশের ওপর হামলার ঘটনায় ছাত্রদল নেতা সবুজ আহমেদকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শনিবার আদালতের মাধ্যমে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এর আগে শুক্রবার রাত ৮টার দিকে শহরের বাজার ব্রিজ এলাকার দোকান থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। সবুজ জেলা ছাত্রদলের সহ-সভাপতি ও লক্ষ্মীপুর পৌরসভার লামচরী এলাকার মৃত সুজায়েত উল্যার ছেলে। তিনি পেশায় ব্যবসায়ী। লক্ষ্মীপুর সদর মডেল থানার […]

বিস্তারিত