নিজস্ব এজেন্ডা বাস্তবায়নে ককটেল হামলা, পুরনো পথে হাঁটছে বিএনপি

নিউজ ডেস্ক : জনবিচ্ছিন্ন বিএনপি রাজনীতির ময়দানে অস্তিত্ব সংকটে পড়েছে। নিজেদের অস্তিত্ব রক্ষায় আবারও সেই পুরনো স্টাইলে হামলার পথ বেছে নিয়েছে দলটি। সমাবেশে লোক জড়ো করতে ব্যর্থ বিএনপির নেতা-কর্মীরা নিজেদের শক্তি জানান দিতে ও জনমনে ত্রাস সৃষ্টি করতে কয়েকটি জেলার বিভিন্ন স্থানে ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায়। অনাকাঙ্ক্ষিত এই হামলায় আওয়ামী লীগ ও যুবলীগের ১০জন নেতা-কর্মী আহত হয়েছেন।

জানা গেছে, মঙ্গলবার (২২ নভেম্বর) রাতে ঈশ্বরদীতে পুলিশের ওপর ককটেল নিক্ষেপ করে বিএনপির ভাড়া করা কর্মীরা। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে আলহাজ্ব টেক্সটাইল উচ্চ বিদ্যালয় মাঠ থেকে ছয়টি অবিস্ফোরিত ককটেল, লোহার এঙ্গেল ও বাঁশের লাঠি উদ্ধার করে পুলিশ। ঈশ্বরদী থানার এসআই শিতল কুমার পরদিন বুধবার সন্ধ্যায় বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামি করে থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

ঈশ্বরদী থানার অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) হাদিউল ইসলাম বলেন, ২২ নভেম্বর রাত সাড়ে ৯টার দিকে আলহাজ্ব টেক্সটাইল মিলস উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে নাশকতার উদ্দেশ্য বিএনপি নেতাকর্মীরা গোপন বৈঠক করছিলেন। খবর পেয়ে অভিযান চালায় পুলিশ। এসময় বিএনপি নেতাকর্মীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে দুটি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায়। পুলিশ ধাওয়া করলে সকলে পালিয়ে যায়। এসময় ঘটনাস্থল থেকে ছয়টি তাজা ককটেল পাওয়া গেছে।

এর আগের দিন একই ধরণের ঘটনা ঘটে নাটোর সদর উপজেলায়। সোমবার (২১ নভেম্বর) রাত সাড়ে ৮টার দিকে নাটোর সদর উপজেলার ডাঙ্গাপাড়া বাজার এলাকায় একসঙ্গে পাঁচটি ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটায় বিএনপির কর্মীরা। পরে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে আরও অবিস্ফোরিত আটটি ককটেল উদ্ধার করেছে। ইতিমধ্যে ওহাব মণ্ডল নামে এক বিএনপি কর্মীকে আটক করা হয়। নাটোর সদর থানার ওসি নাছিম আহমেদ সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

এখানেই শেষ নয়, বুধবার (২৩ নভেম্বর) সন্ধ্যায় বিএনপির নেতাকর্মীরা ককটেল নিক্ষেপ করে যুবলীগের মিছিলে। বগুড়ার আদমদীঘি সদর উপজেলার পুরাতন সোনালী ব্যাংকের সামনে এই ঘটনা ঘটে। এতে পাঁচজন আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে।

উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক জিল্লুর রহমান জানান, উপজেলা যুবলীগের উদ্যোগে দলীয় কার্যালয় থেকে শান্তিপূর্ণ মিছিল পুরাতন সোনালী ব্যাংক এলাকায় পৌঁছানো মাত্র মিছিলে চারটি ককটেল নিক্ষেপ করে বিএনপির নেতা-কর্মীরা। দুইটি ককটেল বিস্ফোরিত হলে মিছিলে অংশগ্রহণকারী ছাত্রলীগের পলাশ, মিঠু, রাসেল, রিফাত ও বাপ্পী আহত হন।

আদমদীঘি থানার ওসি রেজাউল করিম রেজা জানান, পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। দুইটি তাজা ককটেল উদ্ধার করা হয়েছে। এসব ঘটনার পর রাজনৈতিক অঙ্গনে চলছে নিন্দার ঝড়। একটি রাজনৈতিক দলের এহেন সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড জাতির জন্য কখনো মঙ্গলজনক হতে পারে না। বরং এটা দেশের ভবিষ্যতের জন্য এক অশনি সংকেত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও দেখুন

সাবেক মন্ত্রী এ বি এম গোলাম মোস্তফা মারা গেছেন

সাবেক মন্ত্রী, সচিব ও কুমিল্লা-৪ (দেবিদ্বার) আসনের সাবেক সংসদ সদস্য এ বি এম গোলাম মোস্তফা আর নেই। শনিবার (৩ ডিসেম্বর) রাত ৯টায় রাজধানীর একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। তার বয়স হয়েছিল ৮৮। তিনি বাধ্যর্কজনিত নানা রোগে ভোগছিলেন। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, এক ছেলে ও এক মেয়েসহ অসংখ্য আত্মীয়-স্বজন এবং গুণাগ্রাহী রেখে গেছেন। গোলাম […]

বিস্তারিত

বিএনপি কার্যালয়ের সামনে ককটেল বিস্ফোরণ করেছে রিজভীর কর্মীরা

বিএনপির নয়াপল্টন কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে কয়েকটি ককটেল বিস্ফোরণ করেছে দলটির নেতাকর্মীরা। তবে এতে কেনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। শনিবার (৩ ডিসেম্বর) সন্ধ্যা সোয়া ৬টার দিকে কার্যালয়ের সামনের সড়কে ডিভাইডারের পাশে এই বিস্ফোরণ ঘটে। এ বিষয়ে পল্টন থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সেন্টু মিয়া বলেন, আমরা শুনেছি সন্ধ্যার দিকে পল্টনে বিএনপির কার্যালয়ের সামনে ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। তবে বিএনপি […]

বিস্তারিত

বিভক্ত বিএনপি, কেন্দ্রীয় নেতাদের সামনেই দু’পক্ষের সংঘর্ষ

রাজশাহীর মাদ্রাসা মাঠে বিএনপির গণসমাবেশে কেন্দ্রীয় নেতাদের সামনেই দুই পক্ষের মধ্যে মারামারি ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় প্ল্যাকার্ড ছোড়াছুড়ি করেন উভয়পক্ষের নেতাকর্মীরা। ব্যক্তিগত শো-ডাউনকে কেন্দ্র করে সাবেক সংসদ সদস্য নাদিম মোস্তফার বক্তব্য চলাকালে এ ঘটনা ঘটে। কেন্দ্রীয় নেতারা এ সময় বারবার তাদের নিবৃত্ত করার নির্দেশ দিলেও মারামারি চলতে থাকে। দুই পক্ষই সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। […]

বিস্তারিত