খালেদা-তারেকনামা: দুর্নীতিতে ৫ বারের চ্যাম্পিয়ন যারা

নিউজ ডেস্ক: স্বাধীনতার পর বাংলাদেশের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি দুর্নীতি হয়েছিল বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের শাসনামলে। সে সময়ে পরপর ৫ বার দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল বাংলাদেশ। এসব দুর্নীতির মূল কারিগর ছিল তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়ার জ্যেষ্ঠ সন্তান, হাওয়া ভবনের কুশীলব তারেক রহমান।

জিয়াউর রহমান মারা যাওয়ার পর টেলিভিশনে দেখানো হলো, তিনি কেবল একটি ভাঙা সুটকেস ও সন্তানদের জন্য ছেঁড়া গেঞ্জি ছাড়া কিছুই রেখে যাননি। অথচ বিএনপি যখন ক্ষমতায়, জিয়া পরিবার তখন হাজার হাজার কোটি টাকার সম্পদের মালিক।

লঞ্চ, টেক্সটাইল মিলস, বিদেশে বাড়ি, ব্যাংক-ব্যালেন্স- এগুলো হঠাৎ কোথা থেকে এলো? হঠাৎ করে খালেদা জিয়া ও তার সন্তানরা কীভাবে এত টাকার মালিক হলো? পুরো জিয়া পরিবার, অর্থাৎ খালেদা জিয়া, তারেক, কোকো সবাই শুধু অসৎ নয়, তারা চরম দুর্নীতিবাজ, জিঘাংসা পরায়ণ, ক্ষমতালোভী।

বিএনপি-জামায়াত সরকারের কুশাসনে দুর্নীতি প্রাতিষ্ঠানিক রূপ ধারণ করে। ঘুষ, দুর্নীতি, কমিশন বাণিজ্য ওপেন সিক্রেটের মতো বিষয় হয়ে দাঁড়ায়। এসব দুর্নীতির কোন সদুত্তর দিতে পারেননি তারেক রহমান বা বিএনপি। দুর্নীতি, মানিলন্ডারিং, মানুষ হত্যাসহ গুরুতর সব অপরাধে আদালতে দোষী সাব্যস্ত বিএনপির প্রধান দুই নেতা- খালেদা জিয়া ও তারেক রহমান। দুজনই সাজাপ্রাপ্ত আসামি। এর মধ্যে একজন আবার পলাতক। আইনত তারা কেউই নির্বাচনে অংশগ্রহণের উপযুক্ত নন। এমন একটি দল নির্বাচন করবে কীভাবে?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *